কবি রফিকুল ইসলাম’র একগুচ্ছ কবিতা

কবি রফিকুল ইসলাম’র একগুচ্ছ কবিতা
এক।
শঙ্কিত জনপদ”

অসীম আকাশের অবয়ব গম্ভীর
প্রচন্ড অভিমানে শিশুকালের মত।
নীলাভ কষ্টের ব্যঞ্জনা অহর্নিশ,
ভীত-সন্ত্রস্ত ত্রাসের দিবস আগমনে।
লম্বা রাতের বেদনার গৈরিক নিভৃতচারী,
নিরাশার শিশিরে সিক্ত,
যেন ঠান্ডা হাত নবজাতকের ।
ছোট ছোট মলিন নক্ষত্রগুলো
স্বকাতর নিভে আর জ্বলে বিয়োগ ব্যথায়।
সৌরজগৎ নড়েচড়ে বসেছে শ্বৈরতন্ত্রে,
প্রবঞ্চক সূর্যমামা রণসাজে।
তেজদীপ্ত হুঙ্কারে ঝাঁপিয়ে পড়ে
প্রতিদ্বন্দ্বী শান্ত সবুজ পৃথিবীর বুকে,
দুর্দান্ত হেসে ।
ঈগলের মত জমা রেখেছিল প্রবৃত্তির ক্ষুধা।
নির্মম অত্যাচারে
আক্রান্ত আজ সভ্য নগর রাজপথ
জনপদ অলিগলি।
তীব্র জ্বলন্ত অগ্নিতাপে
কঙ্কালসার নৈঃস্বর্গিক বনভূমি।
শান্তিপ্রিয় বসুমতি
শান্তির ফরিয়াদ জানায়
শূন্যতার বেদীমূলে।
চূড়ি আর বেনারসিতে ঘুমায়
মৃত্যু শঙ্কায় নির্বীয নপুংসক প্রাণীকুল,
অমানিশা রাতের ওষ্ঠ চুম্বনে।

দুই।
স্বপ্নময় সময় শেষে
         
সময়গুলো চলে যায় ঠিকানাহীন অনেক দূরে
নিয়ে যায়, সোনালি রঙের সহস্র সকাল,
পান-চুন খেলার গোপন উচ্ছ্বাস, ঝলমলে হাসির
আগামী দিনের বিন্যস্ত সুখের বিকাল  ।
প্রান্তিক বিকেলের আবির মাখানো নেমে আসা
মায়াবী সন্ধ্যা ,
আর সোহাগী রাতের উষ্ণ অনুভবে  স্বপ্নময় 
জীবন গল্পের  এক টুকরো প্রত্যাশা।
পড়ে থাকে কিছু চাওয়া পাওয়া খণ্ডকালের পথে
অপ্রাপ্তির প্রতিশ্রুতির আলুথালু অবশেষ—
রোদ্রোজ্জ্বল স্মৃতিগুলো অগম্য অতীতের কাছে
মহাকাল গ্রাসে নিঃশব্দে হারিয়ে গেছে,
ডানায় রোদের গন্ধ  আর স্বপ্নের সুবাস মেখে
সোনালি চিল  উড়ে যায় শেষে ।
অবিন্যস্ত অপরাহ্নে বিষণ্নতায় আচ্ছান্ন করে
থেঁতলানো কল্পনার নিষ্ফল  চিৎকার,
সময়ের মায়াজালে কুয়াশায় ঝাপসা হয়ে আসে
আলোকিত নক্ষত্রের রূপালি আকাশ
শেষহীন রাতে নীরবে ঝরে পড়ে শীতের তুষার।
সময়ের অদৃশ্য গ্রন্থিতে গোলাপের পাপড়িগুলো
দেখে না কেউ কবে কবে ফুটে ঝরে পড়ে ,
আত্মবিগলিত সুরে একান্ত গোপন কথাটি আর
বলেনা কেউ কোন এক অবসরে।

তিন।
কাঙিক্ষত মহান বিজয়  “

হিংস্র শ্বাপদের তীক্ষ্ণ নখদন্ডে প্রতিটি রাতকে
করেছে কলঙ্কিত
স্বপ্নের সীমানা পেরিয়ে এলো  মহান বিজয়
আপামর কৃষক-শ্রমিকের হীরক প্রাণের অর্জিত।
শিশুরা স্বপ্নসৌধের ছবি আঁকে মহা গৌরবে
বনে বুনো ভাটফুলে রঙিন প্রজাপতি বসে,
ভবঘুরে বলাকারা উড়ে যায় মুক্ত নীল আকাশে
প্রেয়সীর খোলা কালো চুল খেলা করে বাতাসে।
অর্ধশতকের বসন্ত ফিরে গেছে—
এখনো পোড়ামাটির গন্ধ ভাসে
চারিদিকে ধ্বংসের ক্ষতচিহ্ন বিভৎস ত্রাসে।
সমাজবুননে ঘোলাজলে জাল ফেলে দামদরে
এখনো মায়ের অশ্রু ঝরে কাতর চিৎকারে।

বর্ণমালা ম্যাগাজিন

বর্ণমালা ম্যাগাজিন

প্রযুক্তির উঠোনে অনুভবের বসবাস

Leave a Reply

Your email address will not be published.